mous">
বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০২:৩৭ পূর্বাহ্ন

গজারিয়ায় ৪লক্ষ মি কারেন্ট জাল ১টি ট্রলার সহ ১জনকে আটক করেছে নৌ পুলিশ

তুষার আহাম্মেদ- মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায় উপজেলা মেঘনা নদীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৪০০০০০ মিটার কারেন্ট জাল ও ৫৫ টি চায়না দোয়াইর/ চায়না চাই এবং একটি ট্রলার সহ একজন কে আটক করেছে ভ্রাম্যমাণ  আদালত।
গত ৪ই অক্টোবর, সোমবার সকাল থেকে গজারিয়া উপজেলার মেঘনা নদীতে অভিযান চালিয়ে এই নিষিদ্ধ কারেন্ট  জাল জব্দ করে নৌ পুলিশ। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত নির্বাহী  ম্যাজিস্ট্রেটের উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সৈয়দা ইয়াসমিন সুলতানা উপস্থিতে এসব জাল পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়।
উপজেলা মৎস্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, সোমবার বিকালে সহকারী কমিশনার (ভূমি) সৈয়দা ইয়াসমিন সুলতানা নেতৃত্বে একটি দল মেঘনা নদীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালায়। এ সময় নদীর বিভিন্ন অংশে সরকার নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল ও ৫৫ টি চায়না দোয়াইর/ চায়না চাই  জব্দ করা হয়। জব্দকৃত জাল পুড়িয়ে বিনষ্ট  করা হয়।
গজারিয়া  উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা  মোঃ টিপু সুলতান জানান, মেঘনায় অভিযান চালিয়ে ৪০০০০০ মিটার কারেন্ট জাল ও ৫৫ টি চায়না দোয়াইর/ চায়না চাই  জব্দ করা হয়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্দেশে উদ্ধার হওয়া জালগুলি আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, নদ নদীর প্রাকৃতিক মৎস্য সম্পদ রক্ষায় এই অভিযানে অব্যাহত থাকবে। অভিযান চলাকালীন সময় উপস্থিত ছিলেন   গজারিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসারবজিয়াউল ইসলাম চৌধুরী,অভিযানে আরও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মৎস্য অফিসারের  তাছলিমা আক্তার প্রমুখ।
সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন কোস্ট গার্ড এবং গজারিয়া নৌ পুলিশ।
গজারিয়া নৌ-পুলিশের অফিসার ইঞ্চার্জ আব্দুস সালাম বলেন, এস আই মোঃ শাহ আলম, এ এস আই মোঃ আঃ রাজ্জাক, মোঃ ইসমাইল হোসেন, মোঃ সালাহউদ্দিন, মোঃ জাহিদুল ইসলাম সহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে গজারিয়ার মেঘনা নদীতে মা ইলিশ মাছ সংরক্ষণ অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।
এসময় উদ্ধারকৃত অবৈধ জাল উর্ধ্বতন কর্মকতা কে অবহিত করিয়া উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তার উপস্থিতি আগুনে পোড়াইয়া ধ্বংস করা হয় এবং মা ইলিশ মাছ স্থানীয় এতিমখানায় বিলি করা হয়, এই অভিযান অব্যাহত। এবং মাছ ধরার ব্যবহৃত ট্রলারটি গজারিয়া নৌ-পুলিশ হেফাজতে রয়েছে।



ফেজবুক পেইজে লাইক দিন