রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৪৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম
রামপাল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দোয়া ও সমর্থন চাইলেন পারভেজ বেপারী মুন্সীগঞ্জের সিপাহীপাড়া থেকে চোরাই মোটরসাইকেলসহ ১ ভুয়া সাংবাদিক আটক  গজারিয়ায় নুরু মাল গংদের সম্পত্তিতে জোর করে বালু ভরাট লৌহজংয়ে মাদ্রাসার শিক্ষকের কাছে বলাৎকারের শিকার ছাত্র শ্রীনগরে জাতীয় মাছের পোনা অবমুক্ত করণ দিঘীরপাড় পোস্ট অফিসের ৫০ বছর বয়েসী পুরানো কালি কড়ই গাছের নিলাম  গজারিয়ায় বন্ধুর বাবাকে মারধরের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীকে কুপিয়ে জখম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ কন্যা শেখ রেহানা’র ৬৬তম জন্মবার্ষিকী  উপলক্ষ্যে জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে দোয়া ও আলোচনা সভা গজারিয়ায় ভগ্নিপতির ছুরিকাঘাতে শ্যালক আহত গজারিয়ায় শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

মুন্সীগঞ্জে শীত লেপ-তোষকের কারিগরদের ব্যস্ততা বেড়েছে।

 

মোঃ‌লিটন মাহমুদঃ

আসছে শীত, প্রস্তুতি নিচ্ছে শীতার্ত মানুষ। শীত আসতে না আসতেই মুন্সীগঞ্জ সদর উপ‌জেলায় লেপ-তোষকের কারিগরদের ব্যস্ততা বেড়ে গেছে। সেই সাথে দিন দিন বাড়ছে লেপ-তোষকের চাহিদা। লেপ-তোষক মালিক ও শ্রমিকদের খাওয়া-দাওয়ারও সময় নেই।

সেলাইয়ের কাজ ও তুলা ধুনতে ব্যস্ত মালিক-শ্রমিকেরা। শীতের আগমনে ক্রেতারা আগে থেকেই পছন্দমতো লেপ-তোষক তৈরির বায়না করছেন। অন্য দিকে শীতকে ঘিরে গ্রামাঞ্চলে শুরু হয়েছে কাঁথা শেলাইয়ের প্রতিযোগিতা।

অনেকে বিশেষ করে মহিলারা কাঁথা শেলাই করে দু’পয়সা ঘরেও তুলছেন।সদর উপজেলার বি‌ভিন্ন বাজার গু‌লো‌তে প্রায় ৫‌ থে‌কে ৭ শত বাজা‌জে লেপ-তোষকের দোকান রয়েছে।

এ সব দোকানের কারিগররা এখন খুবই ব্যস্ত সময় পার করছেন।
লেপ-তোষক রিকা‌বী বাজা‌রের কারীগর দ্বীন ইসলাম জানান, সময় মতো লেপ-তোষক ডেলিভারি দেয়ার জন্য তারা অতিরিক্ত কারিগর রেখেছেন।
কেননা এ মওসুমের আয় দিয়েই তাদের পুরো বছর চলতে হয়।
অপর কারিগর হুজুত আলী জানান, কাপড় ও তুলার মান বুঝে লেপ-তোষকের দাম নির্ধারণ করতে হয়। তারা চার-পাঁচ হাত লেপ-তোষক ১ হাজার টাকা থেকে ১ হাজার ৬০০ টাকা দরে বিক্রি করে থাকেন।

তবে কাপড় ও তুলার দাম বেশি হওয়ায় এ বছর লেপ-তোষকের দাম একটু বেশি।

তারপরও চাহিদার কোনো কমতি নেই। এ দিকে শীত মওসুমের শুরুতেই এ অঞ্চলের গৃহবধূরা মনের মাধুরী মিশিয়ে নকঁশী করে তৈরি করছেন কাঁথা।
নগর কসবা গ্রামের অাক‌লিমা বেগম ( ৪৯) জানান, অনেকেই শীত মওসুমে তাদের কাছে কাঁথা শেলাই করার জন্য আগাম বায়না নেন। একটি কাঁথা শেলাই করতে তাদের মজুরি বাবদ দেয়া হয় ৫‘শ থেকে ১হাজার টাকা। এভাবে প্রতি বছর তারা ৪০ থেকে ৫০টি কাঁথা শেলাই করে থাকেন।



ফেজবুক পেইজে লাইক দিন